অলিম্পিকে বাংলাদেশের পতাকা হাতে সিদ্দিকুর

Comments are closed

রিও অলিম্পিকের বিভিন্ন টুর্নামেন্টে ২৮ টি ইভেন্টে ২০৬ টি দেশের ১১ হাজার ২৯৩ জন প্রতিযোগী অংশ নিচ্ছেন। সেখানে লাল-সবুজের পতাকা হাতে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন ৭ প্রতিযোগী।

ব্রাজিলের মারকানা স্টেডিয়ামে মশাল প্রজ্জ্বলন, মনোজ্ঞ প্যারেড ও মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু হল রিও অলিম্পিকের। যেখানে তুলে ধরা হয় ব্রাজিলিয়ানদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য। আর এ প্রতিযোগিতায় লাল-সবুজের জার্সি গায়ে  মাঠ মাতাবেন বাংলাদেশের দুজন সাতারু,দুজন অ্যাথলেট,একজন শ্যুটার,একজন আর্চার এবং একজন গলফার।

রিও অলিম্পিকের এবারের আসরে একমাত্র ফুল কার্ড নিয়ে অংশ নিচ্ছেন দেশ সেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমান। সিদ্দিকুর বর্তমানে বিশ্ব র‍্যাংকিংয়ে ৫৫ তম স্থানে থাকায় দেশের দ্বিতীয় অলিম্পিয়ান হিসেবে সরাসরি সুযোগ পান। পেশাদার গলফে যার যাত্রা শুরু ২০০৮ সালে। এরপর ২০১০ সালে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এশিয়ান ট্যুরে অংশ নেন  তিনি। সেই বছরই ব্রুনাই ওপেন শিরোপা জেতেন সিদ্দিকুর। এছাড়া, ১২টি অপেশাদার গলফ টুর্নামেন্টের ট্রফি জেতেন দেশ সেরা এই গলফার।

অলিম্পিকে সাঁতার ইভেন্টে ওয়াইল্ড কার্ড নিয়ে এবার ৫০ মিটার ফ্রি স্টাইলে অংশ নিচ্ছেন মাহফিজুর রহমান সাগর ও সোনিয়া আক্তার। তবে পরিসংখ্যান বলছে,এসএ গেমসে মাহফুজা আক্তার শিলার সফলতার পরই,চলতি বছরের এপ্রিলে থাইল্যান্ড ওপেনে ২০০ মিটার ফ্রি স্টাইলে স্বর্ণ জেতেন সাগর। তাই এবার তার একটাই লক্ষ্য দেশের জন্য সেরাটা দিয়ে ভাল কিছু অর্জন করা।

যার হাতে রাইফেল,নিখুঁত নিশানায় লক্ষ্যভেদ করাই তো তার কাজ। বলছি এবারের রিও অলিম্পিকে শ্যুটিংয়ে দেশের হয়ে  প্রতিনিধিত্ব করা আবদুল্লাহ হেল বাকীর কথা। যিনি ২০১৪ সালে কমনওয়েলথ গেমসে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে রুপা জেতেন। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের হয়ে এবার নিজের সেরা পয়েন্ট অর্জন করতে বেশ প্রত্যয়ী তিনি।

অ্যাথলেটিকসে এবার অংশ নিচ্ছেন মেজবাহ ও শিরিন আক্তার। দুজনই বিকেএসপির খেলোয়াড়। ব্রাজিলে যাওয়ার আগে দুজনই  ট্র্যাকে কঠোর অনুশীলন করেছেন। তবে মেজবাহর একটাই স্বপ্ন বিশ্ব সেরা দৌড়বিদ উসাইন বোল্টের সঙ্গে একই ট্র্যাকে পারফর্ম করা। অলিম্পিকের প্রথম দিনেই আর্চারিতে অংশ নিচ্ছেন শ্যামলী রায়।

এবারে রিও অলিম্পিকে দেশের এ প্রতিযোগিরা নিজেদের সেরাটা দিয়ে দেশের জন্য পদক বয়ে আনবেন এমনটাই প্রত্যাশা করছেন দেশের কোটি ক্রীড়া প্রেমি।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh