ইইউ ছাড়ার পথে ফ্রান্স ও ইতালি

Comments are closed

ব্রিটিশদের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে সরে যাওয়ার প্রভাব পড়েছে বিশ্ব অর্থনীতিতে। এর ফলে, পদত্যাগ করল দেশটির প্রধানমন্ত্রী। দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশি নাগরিকদের মধ্যেও দেখা দিয়েছে এ নিয়ে নানা মত। এমনকি, দেশটির ইউনিয়ন ত্যাগ নিয়ে আগ্রহ দেখা দিয়েছে, বিশ্বের সব প্রান্তেই।  ২০০৮ সালের বিপর্যয়ের পর, ব্রেক্সিটের প্রভাবে, সবচেয়ে বড় ধাক্কা খেল বিশ্ব অর্থনীতি। ডলারের বিপরীতে একদিনে ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি দাম কমেছে পাউন্ডের। এমনকি, গেল ৩০ বছরের মধ্যে যুক্তরাজ্যের মুদ্রার সর্বনিম্ন দরপতন এটি।

যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়েছে, ই.ইউ.ভুক্ত দেশগুলোর একক মুদ্রা ইউরোর ওপরও। বলা হচ্ছে, প্রতিষ্ঠার পর সবচেয়ে বড় সংকটে পড়লো ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

যুক্তরাজ্যের পর এবার ইউরোপীয় ইউনিয়নে ফ্রান্সের সদস্যপদ নিয়ে গণভোটের আয়োজনের আহ্বান জানিয়েছে দেশটির কট্টর ডানপন্থী ন্যাশনাল ফ্রন্ট পার্টি। এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে, ইতালির রাজনীতিতেও। আর আগেই, ইউনিয়ন ত্যাগ করেছে, সুইজারল্যান্ড ও নরওয়ে।

ব্রিটিশদের বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তে নড়েচড়ে বসেছে ইউরোপ। আয়োজন করেছে জরুরি বৈঠকের। যে বৈঠকে ডাকা হয়নি ব্রিটেনকে। জোট ছাড়লেও ব্রিটিশদের সঙ্গে মার্কিনীদের সম্পর্কের কোন অবনতি হবে না বলে মনে করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।  এদিকে, গণভোটের পর বিলেতের বাঙালি কমিউনিটিতে দেখা দিয়েছে, নতুন শঙ্কা। জনগণের রায় অনুযায়ী যেহেতু বেরিয়ে আসতেই হবে সেহেতু, সরকারকে শক্ত হাতে সকল বিপত্তির মোকাবেলা করার পরামর্শ  দিয়েছেন তারা।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh