ফ্রান্সে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ১২৮: বিশ্বনেতাদের নিন্দা ও সমবেদনা

Comments are closed

ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় এবার কেঁপে ওঠল ইউরোপের ফ্রান্স। প্যারিস ও এর আশপাশের কয়েকটি স্থানে একাধিক সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয়েছে শতাধিক। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের মধ্যে বিবিসি নিহতের সংখ্যা ১২৮ বললেও সিএনএন’র দাবি হামলায় ১৫৩ জন নিহত হয়েছে। প্যারিসের একটি স্টেডিয়ামে তখন জার্মানি ও স্বাগতিক ফ্রান্সের মধ্যে আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ চলছিল। উপস্থিত ছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ ও প্রধানমন্ত্রী ম্যানুয়াল ভলস। হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ। কিছুক্ষণের মধ্যেই জানা যায়, গেট দিয়ে ভেতরে ঢোকার চেষ্টার সময় বাধা পেয়ে নিজের সঙ্গে থাকা বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় এক আত্মঘাতী হামলাকারী। এর পর তাৎক্ষণিকভাবে হেলিকপ্টারের সাহায্যে উদ্ধার করা হয় প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীকে।এক রাতে মোট ৬টি হামলার ঘটনা ঘটে। ভয়াবহ হামলাটি ঘটে শহরের কেন্দ্রস্থলে বাটাক্লঁ কনসার্ট হলে। অন্য হামলাগুলো হয়েছে কয়েকটি বার ও রেস্তোরাঁয়। হামলার কিছুক্ষণ পরই সংবাদ সম্মেলন করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ওলাদঁ। ঘোষণা দেন জরুরি অবস্থার ও সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার। দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর দেশটির জরুরি অবস্থা ঘোষণা এই প্রথম। এসময় জড়িতদের দ্রুত চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনা হবে বলেও জানান প্রেসিডেন্ট। হামলার ঘটনায় মানবতার চরম অপমান হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ফ্রান্সকে সব ধরণের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত বলেও জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।হামলার দায় এখনও কেউ স্বীকার না করলেও সন্দেহ যাচ্ছে আইএস’র দিকে। বিতর্কিত ওয়েবসাইট সাইট ইনটেলিজেন্স’র দাবি,জঙ্গি সংগঠন আইএসই এই হামলা চালিয়েছে। হামলার ঘটনায় কোন বাংলাদেশি হতাহত হয়নি বলে জানিয়েছেন প্যারিস বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি।এদিকে, প্যারিস হামলার পরপরই বেলজিয়াম ও প্রতিবেশী দেশগুলোতে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়। ফ্রান্স সংলগ্ন সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন ও তল্লাশি অভিযান জোরদার করেছে বেলজিয়াম। হামলার ঘটনায় আরও নিন্দা জানিয়েছেন, জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, জার্মানির চ্যান্সেলর এনজেলা মার্কেলসহ বিশ্ব নেতারা।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh