সেই ভয়াবহ স্মৃতি নিজেদের শরীরে বয়ে বেড়াচ্ছেন অনেকেই

Comments are closed

একযুগ ধরে ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলার সেই ভয়াবহ স্মৃতি নিজেদের শরীরে বয়ে বেড়াচ্ছেন মৃত্যুসজ্জা থেকে ফিরে আসা আওয়ামীলীগ কর্মিরা। অনেকে গ্রেনেডের স্প্রিন্টার নিজ শরীরে নিয়ে জীবন-মৃত্যুর মাঝামাঝি পর্যায়ে বেঁচে আছেন আবার অসহ্য এই যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরে এ জগৎ ছেড়েঠেছন অনেকে।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে পুরো একযুগ আগে ঘটে যা্ওয়া সেই বিভিষীকাময় দিনের স্মৃতি এভাবেই বর্ণনা করছিলেন মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান। ৫৮ টি স্প্রিন্টার এখনো তার শরীরে। তবে সবচেয়ে যন্ত্রণাদায়ক কিডনীর স্প্রিন্টারটি। যা এখন তার জীবনকে ঝুকিপূর্ণ করে  রেখেছে।

ঢাকা মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য রাশেদা আক্তার রুমা। রক্তাক্ত একুশে আগস্টের ক্ষত এখনো তার শরীরে। জানালেন, সরকারর পক্ষ থেকে চিকিৎসাবাবদ ১২ লাখ এবং মাসিক ১০ হাজার টাকা পেলেও প্রতিনিয়ত মৃত্যু যন্ত্রনা  তাকে তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে।

সেদিনের গ্রেনেড হামলায় তেমন ক্ষতিগ্রস্থ না হলেও যে ভয়াবহতা  আজো নিজেকে তাড়িয়ে বেড়ায় তাতে মাঝে মাঝেই শিউরে ওঠেন  ঢাকা মহানগর আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন।

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আসামীদের সাজা কার্যকর হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় ফাঁসি কার্যকর হয়েছে অনেক আসামীর। তাই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার জীবদ্দশায় দেখতে পারবেন সরকারের কাছে এই দাবি সেদিনের আহতদের।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh