সেলুলয়েডে প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের আত্মজীবনী

Comments are closed

প্রথমবারের মতো বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের জীবনী নিয়ে নির্মিত হতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র ‘প্রীতিলতা’।  ছবিটি তৈরি করছেন তরুণ নির্মাতা রাশিদ পলাশ। ছবির সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন সেলিনা হোসেন,বিবি রাসেল ও মাতিয়া বানুর মতো বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। সম্প্রতি একটি অভিজাত হোটেলে  আয়োজিত স্মরণসভায় এ ঘোষণা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে ফেরদৌসি প্রিয়ভাসিনী,কাজী রোজি,শ্যামল দত্ত,আয়শা খানমসহ গুনী ব্যক্তিবর্গরা ছবিটি নিয়ে নিজেদের প্রত্যাশার কথা ব্যক্ত করেন। এসময় প্রীতিলতার স্মরনে ও চলচ্চিত্রের নির্মাণ কাজের অংশ হিসেবে বাংলার প্রীতিলতা.কম নামে একটি ওয়েব সাইটের উদ্বোধন করা হয়। এ সময় ছবিটির সার্বিক বিষয় নিয়ে কথা বলেন পরিচালক রাশিদ পলাশ।  তার সাথে কথা বলেছেন  রেডিও ধ্বনির নিউজ ব্রডকাস্টার জাকিয়া হিমু।

প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের মতো  বিপ্লবীকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণের অনুপ্রেরণা কিভাবে পেলেন?

রাশিদ পলাশ:  অনেকেই ভাবেন আমাদের দেশের চলচ্চিত্রের গল্প নেই,  কাহিনী বাছাই অনেক দৈণ্যতা। সে ক্ষেত্রে আমি মনে করি, দেশের গৌরবময় ইতিহাসের যেসব চরিত্রকে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা যায়, প্রীতিলতা তেমনই এক অনুপ্রেরণাদায়ক ইতিহাস। গল্প হিসেবে তাই ‌প্রীতিলতা’ অনন্য এবং অনবদ্য।  দেশের জন্য আত্বাহুতি দান  করা এই মহান বিপ্লবীর কথা সবার জানা উচিত। এই বোধ থেকেই  আমার এই ক্ষুদ্র উদ্যোগ।

পৃথিবীর যেকোন দেশেই  আত্মজীবনী নির্ভর ছবি নির্মাণের ক্ষেত্রে অনেক বেশি প্রস্তুতি নেয়া হয়,সেক্ষেত্রে আপনি কতটা প্রস্তুত?

রাশিদ পলাশ: ঠিকই বলেছেন। এটা সবচেয়ে কঠিন কাজ। তবে আমি এ বিষয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী। প্রীতিলতাকে জানার জন্য,বোঝার জন্য আমি চট্টগ্রাম,ধলঘাট গিয়েছি। তার বেড়ে ওঠার জায়গাগুলো, সংগ্রামের স্থানগুলোয় ঘুরেছি। জেনেছি তার শৈশব-কৈশোরে কাটানো না জানা অনেক গল্প, অনেক কথা। এ সবই থাকবে আমার ছবিতে।  সেই সাথে ছবিটি  করার জন্য যা যা প্রয়োজন, সে সম্পর্কে কারিগরি সব বিষয়গুলো আমি ও আমার টিম প্রস্তুত করছে। সব মিলিয়ে ছবিটির কারিগরি ও কলাকুশলীর সার্বিক দিক বেশ শক্তিশালী।

ছবিটির সাথে অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিরা যুক্ত হয়েছেনতাদের কাছে প্রত্যাশা কি রকম?

রিশাদ পলাশ: চরিত্রটাই অন্যরকম। গতানুগতিক ধারার একদম বাইরে।  কোনো কারণেই এ ছবিতে কোন ভুল তথ্য দেয়া যাবে না। সেজন্য সচেতন আমি। সেই সচেতনতার কারণেই চলচ্চিত্রটির পান্ডুলিপি উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। কস্টিউম ডিজাইনিংয়ে থাকছেন বিশ্বখ্যাত ডিজাইনার বিবি রাসেল। চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখছেন গোলাম রব্বানীর মতো জনপ্রিয় ও সেরা মানুষেরা। ছবিটির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রীতিলতা ট্রাস্টও। এমন সব গুনী মানুষকে একসাথে পেয়ে আমি আসলেই নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি। ছবিটা শুরুর জন্য এটাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো আমার জন্য।  এখন পর্যন্ত  সে চ্যালেঞ্জে আমি সফল বলতে পারেন।

মূল চরিত্র প্রীতিলতার নাম ভুমিকায় কে অভিনয় করছেন, তার খোলাসা এখনও না করার কারন?

রিশাদ পলাশ: প্রীতিলতা চরিত্রটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই তার চরিত্রকে পর্দায় আনার ক্ষেত্রে আমি খুব বেশি জোর দিচ্ছি। কে হচ্ছেন প্রীতিলতা,এটা এখনই আমরা দর্শককে জানাতে চাচ্ছি না। খুব শিগগিরই শুটিং শুরুর মাধ্যমে জানানো হবে কে হচ্ছেন প্রীতিলতা।

আপনার উদ্যোগ ও আশাবাদ শতভাগ পূর্ণতা পাক। আপনাকে ধন্যবাদ।

রাশিদ পলাশ: আমার জন্য দোয়া করবেন। প্রীতিলতার জন্যও। আপনাদেরকেও ধন্যবাদ।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh