১২ বছর পর নির্বাচন পাবনার বেড়া পৌরসভায়

Comments are closed

সীমানা সংক্রান্ত মামলার জটিলতা অবসানের পর ১২ বছর পর পাবনার বেড়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত  হচ্ছে আগামীকাল।  পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন দেখে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা রয়েছেন সংশয়ে। ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা, ভোটারদের হুমকী ধামকী ও ভোট কেটে নেয়ার আশঙ্কায় অভিযোগ করেছেন বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী।

১৯৮৮ সালের ১৭ এপ্রিল যাত্রা শুরু করা তৃতীয় শ্রেনীর বেড়া পৌরসভা প্রথম শ্রেনীতে উন্নীত হয় ২০০১ সালে। সর্বশেষ বেড়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৯৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি। মেয়র নির্বাচিত হন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুর ছোট ভাই আব্দুল বাতেন। পৌর এলাকার সীমানা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আদালতে পাল্টাপাল্টি মামলা থাকায় নির্বাচন হয়নি এতদিন। তবে সকল আইনী জটিলতা শেষে ১২ বছর পর আগামীকাল  অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বেড়া পৌরসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ জন, কাউন্সিলর পদে ৬২ জন ও সংরক্ষিত আসনে ১২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রার্থীদের আশঙ্কা, নির্বাচন কমিশন ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার পরিবেশ তৈরী করতে না পারলে সুষ্ঠু ভোট হবে না।

আর এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আব্দুল বাতেন বলেছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপুর্ন হবে। তবে এর আগের পৌর ও ইউপি নির্বাচনের চিত্র দেখে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছেন ভোটাররা। তারা বলছেন, ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার পরিবেশ থাকলে তারা সৎ যোগ্য প্রার্থীকেই নির্বাচিত করবেন।

এদিকে পাবনা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। বেড়া পৌরসভার দশটি সাধারণ ওয়ার্ড ও তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটার ৩৮ হাজার ১৩১ জন। মোট ১৭টি ভোট কেন্দ্রের ১৩৬টি কক্ষে ভোট গ্রহণ করা হবে। এছাড়া অস্থায়ী ভোট কক্ষের সংখ্যা রয়েছে ৩৩টি।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh