অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে ছয় ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ

Comments are closed

অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে ছয় ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। ১৫৯টি দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ১২১-এ। স্থানীয় সময় শুক্রবার এক  প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায় কানাডাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান থিংকট্যাংক ফ্রেজার ইনস্টিটিউট। ২০১৪ সালের তথ্য-উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা ও ভারত। সূচক নির্ধারণী প্রায় প্রতিটি ক্যাটাগরিতেই বাংলাদেশ পিছিয়ে আছে। সূচকে শীর্ষ দেশ  হংকং এবং সবচেয়ে নিচে অবস্থানকারী দেশের নাম ভেনিজুয়েলা।

২০১৪ সালের তথ্য-উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন দেশের ওরপ জরিপ চালিয়ে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকের তালিকা প্রকাশ করেকানাডাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান থিংকট্যাংক ফ্রেজার ইনস্টিটিউট।  এ তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা ও ভারত। সূচক নির্ধারণী প্রায় প্রতিটি ক্যাটাগরিতেই বাংলাদেশ পিছিয়ে আছে।
সূচকে শীর্ষ দেশ হচ্ছে হংকং এবং সবচেয়ে নিচে অবস্থানকারী দেশের নাম ভেনিজুয়েলা। সংস্থাটির বিশ্ব অর্থনৈতিক স্বাধীনতা : ২০১৬ বার্ষিক প্রতিবেদন-এ অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচক তুলে ধরে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

সূচকে শীর্ষ দশে জায়গা করে নেয়া দেশ হলো হংকং, সিঙ্গাপুর, নিউজিল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, কানাডা, জর্জিয়া, আয়ারল্যান্ড, মৌরিশাস, আরব আমিরাত ও অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাজ্য।
সূচকে নিম্নক্রমে ১০টি দেশের নাম সাজানো হয়েছে এইভাবে। যার শুরুতে আছে ইরান, আলজেরিয়া, শাদ, গিনির নাম। পরের ক্রমে আছে অ্যাঙ্গোলা, মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র, আর্জেন্টিনা, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, লিবিয়া ও ভেনিজুয়েলার নাম।

মূলত সরকারের আকার, আইনি কাঠামো ও সম্পত্তির অধিকার, স্থিতিশীল মুদ্রা, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য স্বাধীনতা এবং নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা এই পাঁচটি ক্যাটাগরির ওপর ভিত্তি করে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচক তৈরি করা হয়।
এতে দেখা গেছে, ক্যাটাগরিভিত্তিক বাংলাদেশের বৈশ্বিক অবস্থান হচ্ছে আইনি কাঠামো ও সম্পত্তির অধিকারে ১৫৭তম, স্থিতিশীল মুদ্রায় ১২১তম, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য স্বাধীনতায় ১৩৫তম, এবং আর্থিক নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের অবস্থান গড়ে ৮৬তম ।

 

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh