আতঙ্কে ৩য় দেশে ব্যবসায়িক বৈঠক করছেন পোষাক ক্রেতারা

Comments are closed

গুলশান ও শোলাকিয়ার জঙ্গি হামলার পর বাংলাদেশে আসতে নিরাপত্তার অভাব বোধ করলেও বিদেশী ক্রেতারা বাংলাদেশি তৈরি পোষাক কেনা অব্যাহত রেখেছেন। সেক্ষেত্রে বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে তারা বৈঠক করছেন তৃতীয় কোনো দেশে। আর ক্রেতা ধরে রাখতে তাতে রাজিও হচ্ছেন দেশের তৈরি পোশাক  শিল্প মালিকরা।

গুলশানের হামলায় নিহত ১৭ বিদেশী নাগরিকের নয়জন ইতালির। যাদের বেশির ভাগই, যুক্ত ছিলেন তৈরি পোশাকখাতের সঙ্গে। তবে, ওই ঘটনার পর, বিদেশী নাগরিকদের পাশাপাশি ফিরে যায় পোশাকশিল্পের কিছু ক্রেতা। ফলে, বর্তমানে অনেক বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে, দেশের বাহিরে। এতে বাড়তি খরচ গুনতে হচ্ছে গার্মেন্ট মালিকদের। বাংলাদেশ গার্মেন্টস বায়িং এসোসিয়েশনের সভাপতি কাজী ইফতেখার হোসেন জানান, এমন অবস্থায় সবচেয়ে বেশি হুমকিতে পড়েছে ছোট পোশাক কারখানাগুলো। পরিস্থিতি না বদলালে- যার প্রভাব পড়বে বড় কারখানায়। ফলে কর্মহীন হয়ে পড়তে পারে এই খাতের বিপুল সংখ্যক শ্রমিক।

তবে, সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপে আশাবাদি বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন-এফবিসিসিআই এর সহ-সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। বলেন, জঙ্গিবাদ বৈশিক সমস্যা। বিদেশীদের চাহিদামতো নিরাপত্তা নিশ্চিত করায়, পরিস্থিতি আগের চেয়ে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে।

গেল বছর, বিভিন্ন পণ্য রফতানি করে প্রায় ২৮ বিলিয়ন ডলার আয় করে বাংলাদেশ। যার ৮০ শতাংশের ওপরে এসেছে তৈরি পোশাক রপ্তানি করে।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh