পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত হচ্ছে গাইবান্দার বিভিন্ন এলাকা

Comments are closed

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢল ও বর্ষনে যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, ঘাঘট, করতোয়াসহ গাইবান্ধার সবগুলো নদীর পানি বাড়ছে। ফলে, নতুনভাবে প্লাবিত হয়েছে সুন্দরগঞ্জের কাপাসিয়া, শ্রীপুর ও তারাপুর এলাকা। গাইবান্ধা সদর উপজেলার কামারজানি, মোল্লারচর, গিদারী, ঘাগোয়া, কাউন্সিলের বাজারও তলিয়ে গেছে পানিতে। পানিবন্দি জীবনযাপন করছেন, ফুলছড়ি ও সাঘাটা উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের অন্তত ১৪ হাজার পরিবার। প্লাবিত এলাকার, কয়েকশ মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন বালাসীঘাট রাস্তায় ও সৈয়দপুর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে।  এদিকে, উজান থেকে নেমে আসা ঢল আর ভারি বর্ষণে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে কুড়িগ্রাম ও শরীয়তপুরের।  বেড়েছে, সুনামগঞ্জের বিভিন্ন নদ-নদী ও হাওরের পানি। নতুন করে তলিয়ে গেছে, আরও  কিছু এলাকা। হাজারো পানিবন্দি মানুষ অপেক্ষায় আছেন, বিশুদ্ধ খাবার ও পানির। এদিকে, পদ্মার পানি বাড়ায়, ব্যহত হচ্ছে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি রুটের নৌযান চলাচল। পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে স্রোত। ফলে বাড়তি সতর্কতা নিয়ে নদী পার হচ্ছে ফেরিসহ অন্যান্য নৌ যান। বিশেষ করে, রাতে স্রোত বেশি থাকায়, ফেরি ও লঞ্চগুলোকে অনেকটা ঘুরে তীরে পৌঁছানো লাগে। আর, এই বিলম্বের কারণে, দুই ঘাটে তৈরি হয় যানজট।

Comments are closed.

Web Design BangladeshWeb Design BangladeshMymensingh